রাজশাহী বিভাগে করোনা আক্রান্তের হার নেমে এসেছে ১৬ থেকে ৭ ভাগে,

মোট দেখেছে : 107
প্রসারিত করো ছোট করা পরবর্তীতে পড়ুন ছাপা

এম এচ এইচ শাহাদত হোসেন, রাজশাহী জেলা প্রতিনিধিঃ রাজশাহী বিভাগের আট জেলা মিলে মোট করোনা রোগীর সংখ্যা গতকাল পর্যন্ত দাঁড়িয়েছে ১৮ হাজার ৪২৩ জন। এর মধ্যে মারা গেছে ২৬৮ জন। অথচ গত জুলাই মাসের ৭ তারিখে আক্রান্তের সংখ্যা ছিলো ৭ হাজার ৪৬০ জন। সেটি গত ৭ আগস্টে গিয়ে দাঁড়ায় ১৩ হাজার ৭৮০ জনে। সেই হিসেবে গত এক মাসে আগের মাসের তুলনায় কমতে শুরু করেছে আক্রান্ত রোগীদের সংখ্যা। শেষ এই এক মাসে আগের মাসের তুলনায় কমেছে মৃত্যুর হারও। এমনকি করোনায় হটস্পটে পরিণত হওয়া রাজশাহী নগরী ও বগুড়া শহরেও কমতে শুরু করেছে রোগীর সংখ্যা। আগের মাসে যেখানে গড়ে প্রতিদিন এই দুই শহরে অন্তত ৭০ জন করে আক্রান্ত হতেন, সেখানে গত মাসে আক্রান্ত হয়েছে গড়ে সর্বোচ্চ ২০ জন। গত মাসের শেষ দিকে এসে এটি আরও কমতে শুরু করেছে।

স্বাস্থ্য বিভাগের দেওয়া তথ্য মতে এ বিভাগে এখন গড় আক্রান্তের সংখ্যা অর্ধেকের নিচে নেমে এসেছে। গতকাল পর্যন্ত রাজশাহী বিভাগে গড় আক্রান্তের সংখ্যা ছিলো ৭ দশমিক ৩ ভাগ। অথচ গত মাসে সেটি ছিলো ১৬ ভাগ। ফলে গত এক মাসে প্রায় নয় ভাগ কমেছে আক্রান্তের হার। এটি নিঃসন্দেহের আশার আলো দেখাচ্ছে বলে মনে করেন স্বাস্থ্য কর্মকর্তারা। রাজশাহী বিভাগীয় স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ও জেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তার দপ্তর থেকে দেওয়া তথ্য মতে, গতকাল সোমবার পর্যন্ত এ বিভাগের আট জেলা মিলে মোট করোনা সংক্রমিত রোগীর সংখ্যা হলো ১৮ হাজার ৪২৩ জন। এর মধ্যে রাজশাহীতে আক্রান্তের সংখ্যা ৪৬৬০ জন, বগুড়ায় ৬৯৪১ জন, সিরাজগঞ্জে ১৯৯১ জন, পাবনায় ১০৪৪ জন, নওগাঁয় ১১৮১ জন, জয়পুরহাটে ৯৭৯ জন, নাটোরে ৮৯১ জন ও চাঁপাইনবাবগঞ্জে ৭২৮ জন। গতকাল পর্যন্ত মোট মৃত্যুর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২৬৮ জন। যেটি গত ৭ আগস্ট ছিলো ১৮৯ জন। তার আগের মাসে ৭ জুলাই ছিলো ১০০ জন। গত ৭ আগস্ট রাজশাহী বিভাগের আট জেলার মধ্যে করোনা আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ছিলো রাজশাহীতে ৩৪৯২ জন, বগুড়ায় ৫০৯৪ জন, সিরাজগঞ্জে ১৫৩৯ জন, পাবনায় ৮৫২ জন, নওগাঁয় ৯৬০ জন, জয়পুরহাটে ৭৮২ জন, নাটোরে ৫৪৪ জন ও চাঁপাইনবাবগঞ্জে ৫১৭ জন। এদিকে তার আগের মাসে অর্থাৎ গত ৭ জুলাই পর্যন্ত বিভাগের আট জেলার মধ্যে রাজশাহীতে আক্রান্তের সংখ্যা ছিলো ১২৭৮ জন, বগুড়ায় ৩৪৪৬, সিরাজগঞ্জে ৬৬০, পাবনায় ৫৯৭, নওগাঁয় ৫৮৪, জয়পুরহাটে ৫১১, নাটোরে ২৫৩ ও চাঁপাইনবাবগঞ্জে ছিলো ১০১ জন। রাজশাহী বিভাগের করোনা চিত্র বিশ্লেষণ করলে দেখা যায়, গত ৮ মার্চ দেশে করোনা রোগী প্রথম শনাক্ত হলেও রাজশাহী বিভাগে ধরা পড়ে পহেলা এপ্রিলে। এরপর আস্তে আস্তে বৃদ্ধি পেতে থাকে আক্রান্ত রোগীদের সংখ্যা। মাঝের তিন মাস সবেচেয় মারাত্মক আকার ধারণ করে করোনা পরিস্থিতি। তবে আশার কথা হলো সর্বশেষ গত মাসে এসে করোনা অনেকটায় কমতে শুরু করেছে। এমনকি কমছে মৃত্যু হারও। বিষয়টি স্বীকার করে রাজশাহী বিভাগীয় স্বাস্থ্য কর্মকর্তা গোপেন আচার্য্য বলেন, ‘এই বিভাগে শেষ এক মাসে অনেকটায় কমতে শুরু করেছে আক্রান্তের হার। এমনকি মৃত্যু হারও কমেছে। শেষ গত রবিবার থেকে গত সোমবার ২৪ ঘন্টায় কোনো রোগীও মারা যায়নি। অথচ গত তিন-চার মাসে বিভাগের আট জেলায় প্রতিদিন গড়ে অন্তত ২ জন করে মারা গেছেন। কোনো কোনো দিন সেটি ৩-৪ জনও ছাড়িয়ে গেছে।’

আরো দেখুন

সাম্প্রতিক ভিডিওগুলি