অর্ডার নিয়ে খাবার নেই, ফুডপান্ডাকে আইনি নোটিশ

অর্ডার নিয়ে খাবার নেই, ফুডপান্ডাকে আইনি নোটিশ
সর্বমোট পঠিত : 68 বার
জুম ইন জুম আউট পরে পড়ুন প্রিন্ট

নোটিশকারী আইনজীবী জানান, খাবারগুলো তার মক্কেল সন্তান ও ভাতিজা-ভাগ্নের (নেফিউ) জন্য অর্ডার করেছিলেন। অর্ডারের পর থেকে তারা খাবারের অপেক্ষায় ছিল। এক পর্যায়ে ক্ষুধার্ত অবস্থায় কান্নাকাটি করে তারা রাত সাড়ে ১০টার দিকে ঘুমিয়ে পড়ে। ইকরাম হোসেনও অপেক্ষায় থাকতে থাকতে একঘণ্টা পর ঘুমিয়ে পড়েন। কিন্তু তখনো খাবার সরবরাহ করা হয়নি। এমনকি পরে আর কোনো যোগাযোগও করেনি ফুড পান্ডা কর্তৃপক্ষ। অর্ডার নিয়ে খাবার সরবরাহ না করায় পাঁচ লাখ টাকা ক্ষতিপূরণ চেয়ে অনলাইনভিত্তিক প্রতিষ্ঠান ফুডপান্ডাকে আইনি নোটিশ পাঠানো হয়েছে।

নোটিশে অর্ডার নিয়ে সময়মত খাবার সরবরাহ না করার ব্যাখ্যা চাওয়া হয়েছে ফুড পান্ডার কাছে। সেই সঙ্গে পাঁচ লাখ টাকা ক্ষতিপূরণ চাওয়া হয়েছে। গুলশানে অবস্থিত ফুডপান্ডার কান্ট্রি ডিরেক্টর বরাবর নোটিশটি পাঠিয়েছেন ভুক্তভোগী ইকরাম হোসেন। নোটিশকারীর আইনজীবী মুহাম্মাদ নিউজবাংলাকে বলেন, ‘গত ১৪ মে রাত ৮টা ৪০ মিনিটে বগুড়ার ‘ফুডল্যান্ড’ নামের একটি খাবার দোকান থেকে ফুডপান্ডার মাধ্যমে দুটি চিকেন বার্গার অর্ডার করেন আমার ক্লায়েন্ট ইকরাম হোসেন। খাবারটি যেই ঠিকানায় সরবরাহ করার কথা বলা হয়, সেটি ‘ফুডল্যান্ড’ থেকে ১০ মিনিটের পথ। অথচ সেখানে খাবারটি সরবরাহের জন্য ৬০ মিনিট সময় দেখানো হয়। সেই সঙ্গে, খাবারের দাম হিসেবে ২২২টাকাও কেটে নেয়া হয় অর্ডারকারীর ব্যাংক ক্রেডিট কার্ডের অ্যাকাউন্ট থেকে।’

এই আইনজীবী জানান, খাবারগুলো তার মক্কেল সন্তান ও ভাতিজা-ভাগ্নের (নেফিউ) জন্য অর্ডার করেছিলেন। অর্ডারের পর থেকে তারা খাবারের অপেক্ষায় ছিল। এক পর্যায়ে ক্ষুধার্ত অবস্থায় কান্নাকাটি করে তারা রাত সাড়ে ১০টার দিকে ঘুমিয়ে পড়ে। ইকরাম হোসেনও অপেক্ষায় থাকতে থাকতে একঘণ্টা পর ঘুমিয়ে পড়েন। কিন্তু তখনো খাবার সরবরাহ করা হয়নি। এমনকি পরে আর কোনো যোগাযোগও করেনি ফুড পান্ডা কর্তৃপক্ষ।

নোটিশকারী আইনজীবী বলেন, এই অবহেলায় ছোট শিশুরা রাতের খাবার থেকে বঞ্চিত হয়েছে। এই কারণে গত ২২ মে ফুডপান্ডার বিরুদ্ধে আইনি নোটিশ পাঠানো হয়েছে। নোটিশে সাত দিনের সময় দেয়া হয়েছিল। কিন্তু এখনও তার কোনো জবাব তারা দেয়নি। আর দু একদিন দেখে তাদের বিরুদ্ধে পরবর্তী আইনগত পদক্ষেপ নেয়া হবে।

মন্তব্য

আরও দেখুন

জামালপুর লাইভ টিভি