‘চাণক্যনীতি’ থেকে ভারতকে সরে আসতে বলল পাকিস্তান

মোট দেখেছে : 105
প্রসারিত করো ছোট করা পরবর্তীতে পড়ুন ছাপা

অনলাইন ডেস্কঃ ভারতকে ‘চাণক্য মতবাদ’ ছেড়ে আঞ্চলিক শান্তি ও উন্নয়নে একবিংশ শতাব্দীর মডেল গ্রহণ করার আহ্বান জানিয়েছে পাকিস্তান। দেশটি বলেছে, ভারতের যুদ্ধংদেহী মনোভাব ও সম্প্রসারণবাদী নীতি এ এলাকার আঞ্চলিক শান্তি ও স্থিতিশীলতাকে ব্যাহত করছে। ইসলামাবাদের এক সংবাদ সম্মেলনে দেশটির পররাষ্ট্র দপ্তরের মুখপাত্র জাহিদ হাফিজ চৌধুরী এসব কথা বলেন।

 চীন ও পাকিস্তানের সঙ্গে যুদ্ধ করার বিষয়ে প্রস্তুতি আছে—ভারতের বিমানবাহিনী প্রধান রাকেশ কুমার সিং বাহাদুরিয়ার সাম্প্রতিক বক্তব্যের প্রতিক্রিয়ায় জাহিদ হাফিজ চৌধুরী এসব কথা বলেন। গতকাল শুক্রবার প্রেস ব্রিফিংয়ে তিনি বলেন, এ ধরনের বক্তব্য উসকানিমূলক। আর এটা হলো আরএসএস-বিজেপির মানসিকতার প্রকাশ। এ ধরনের বক্তব্য চরমপন্থী আদর্শের মনোভাব।


জাহিদ হাফিজ চৌধুরী বলেন, কিছু প্রবীণ রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব ও সামরিক নেতা উসকানিমূলক বক্তব্য দিয়ে যাচ্ছেন। এ ধরনের বক্তব্য আঞ্চলিক শান্তি ও সুরক্ষা এবং ভারতের নিজস্ব নিরাপত্তাকে ঝুঁকির মুখে ফেলছে। মুখপাত্র জাহিদ হাফিজ বলেন, ‘ভারতের বিমানবাহিনী প্রধানকে অবশ্যই দেশটির প্রতিরক্ষা সীমাবদ্ধতাগুলো ভুলে গেলে চলবে না। কারণ, দুটো ঘটনায় ভারত বিব্রতকর অবস্থায় পড়েছিল, প্রথমটি বালাকোটে এবং পরেরটি লাদাখে। যেকোনো অপকর্মের বিরুদ্ধে আমাদের সশস্ত্র বাহিনীর প্রস্তুতিকে ভারতের অবমূল্যায়ন করা উচিত নয়।’

লাদাখ সীমান্ত নিয়ে চীন ও ভারতের মধ্যে উত্তেজনা সম্পর্কে জাহিদ হাফিজ বলেন, ‘ভারতের যুদ্ধংদেহী মনোভাব ও সম্প্রসারণবাদী নীতি এই এলাকার আঞ্চলিক শান্তি ও স্থিতিশীলতাকে ব্যাহত করছে। আমরা চীন ও ভারতের মধ্যে সীমান্তের উত্তেজনা খুব কাছ থেকে পর্যবেক্ষণ করছি। আমরা বিশ্বাস করি যে এসব অবস্থা একতরফা এবং দমনমূলক ব্যবস্থা গ্রহণের পরিবর্তে শান্তিপূর্ণ উপায়ে সমাধান করা উচিত।’ যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক ফরেন পলিসি ম্যাগাজিনের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ‘ভারত সন্ত্রাসবাদের পৃষ্ঠপোষকতা করছে এবং এ অঞ্চলকে অস্থিতিশীল করতে পারে। এ ব্যাপারে দৃষ্টি আকর্ষণ করা হলে পাকিস্তানের পররাষ্ট্র দপ্তরের মুখপাত্র বলেন, পাকিস্তান সব সময় ভারতের সন্ত্রাসবাদ এ অঞ্চলকে অস্থিতিশীল করতে পাকিস্তানের অবস্থানের কথা আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের কাছে তুলে ধরে। সম্প্রতি, আমরা দেখেছি যে শান্তি বজায় রাখতে পাকিস্তানের অবস্থানের সত্যতা আন্তর্জাতিক পর্যায়ে প্রমাণ মিলেছে। আর ভারত সন্ত্রাসবাদের পৃষ্ঠপোষকতা যে করে, তা-ও প্রমাণিত হয়েছে।’ মার্কিন ম্যাগাজিনের প্রতিবেদনে ভারতের প্রকৃত চেহারাটি আরও উন্মোচিত হয়েছে।

জাহিদ হাফিজ বলেন, ভারতের সম্প্রসারণবাদী নীতিগুলো আঞ্চলিক শান্তি ও স্থিতিশীলতার ক্ষেত্রে বাধা। পাকিস্তান ইতিমধ্যে আন্তর্জাতিক গোষ্ঠীর কাছে পাকিস্তানে সন্ত্রাসবাদী কর্মকাণ্ডে ভারতীয় গোয়েন্দা সংস্থা ‘র’-এর জড়িত থাকার প্রমাণ দিয়েছে। এ অঞ্চলকে অস্থিতিশীল করার হাতিয়ার হিসেবে ভারতের সন্ত্রাসবাদ সম্পর্কে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে তাৎক্ষণিকভাবে অবহিত করা হয়েছে। 

সূত্রঃ প্রথম আলো

আরো দেখুন

সাম্প্রতিক ভিডিওগুলি