সচেতনতা না বাড়ালে চট্টগ্রামে করোনা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনা সম্ভব না, চট্টগ্রাম সিভিল সার্জন

মোট দেখেছে : 807
প্রসারিত করো ছোট করা পরবর্তীতে পড়ুন ছাপা

দেবাশিষ গোলদার হৃদয়,উপজেলা প্রতিনিধি,চটগ্রামঃ চট্টগ্রামে গত ২৪ ঘন্টায় করোনা ভাইরাস নমুনা পরীক্ষা করা হয় ১,০৮৫ জনের।নমুনা পরীক্ষায় এর মধ্যে নতুন করোনা ভাইরাস আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ৯০ জন।শনাক্তের হার গিয়ে দাঁড়িয়েছে ৮.২৯ শতাংশে।নমুনা পরীক্ষার তুলনায় করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত রোগী শনাক্তের হার ক্রমান্বয়ে অতি দ্রুত বাড়ছে।

 এ পর্যন্ত চট্টগ্রামে সর্বমোট করোনা ভাইরাস নমুনা পরীক্ষা করা হয় ১,০৬,৮২৯ জনের।।যার মধ্যে করোনা ভাইরাস পজিটিভ রোগীর সংখ্যা  ১৮,৯৪৯ জন।সর্বমোট ১৮,৯৪৯ জন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত রোগীর মধ্যে,চট্টগ্রাম মহানগরে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা  ১৩,৬২০ জন ও উপজেলাসমূহে আক্রান্তের সংখ্যা ৫,৩২৯ জনে গিয়ে দাঁড়িয়েছে এবং করোনা ভাইরাস আক্রান্তের সংখ্যা দ্রুত বৃদ্ধি পাচ্ছে।বর্তমানে চট্টগ্রামে রোগী শনাক্ত এর সর্বমোট হার ১৭.৭৩ শতাংশে পৌছেঁচে।গত ২৪ ঘন্টায় চট্টগ্রামে আরো একজন করোনা ভাইরাস আক্রান্ত রোগী মৃত্যুবরণ করেছেন বলে জানা যায় চট্টগ্রাম সিভিল সার্জনের কার্যালয় হতে। এ নিয়ে চট্টগ্রামে সর্বমোট করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করেছেন ২৯৩ জন আক্রান্ত রোগী।ক্রমান্বয়ে ভাইরাস আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুর হারও বৃদ্ধি পাচ্ছে চট্টগ্রামে।বর্তমানে চট্টগ্রামে মৃত্যুর হার ১.৫৪ শতাংশ।১৮,৯৪৯ জন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত রোগীদের মধ্যে বর্তমানে চট্টগ্রামের বিভিন্ন হাসপাতালের আইসোলেশন শয্যায় আছেন ১৪২ জন করোনা ভাইরাস আক্রান্ত রোগী।এদের মধ্যে আইসিইউতে নিবিড় পর্যবেক্ষণে রাখা হয়েছে ৩৬ জন করোনা ভাইরাস আক্রান্ত রোগীকে।শ্বাসকষ্ট জনিত সমস্যায় ভুগতে থাকা অনেক রোগীর স্বাস্থ্য অবস্থা আশংকাজনক বলেও জানা যায়,হাসপাতাল কতৃপক্ষের তথ্য অনুসারে।

আবারো, চট্টগ্রাম জেলায় করোনা পরিস্থিতি এমন অবনতির জন্য "চট্টগ্রামবাসীদের স্বাস্থ্যবিধি মেনে না চলা,নিয়মিত মাক্স ব্যবহার না করা ও অসচেতনতাকেই দায়ী করলেন চট্টগ্রাম সিভিল সার্জন"।চট্টগ্রামবাসীর নমুনা পরীক্ষা নিয়ে নানান অজুহাত ও করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকির প্রতি খামখেয়ালি মনোভাবে,চট্রগ্রামে করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক হতে দিচ্ছে না বলেও জানান তিনি।

 চট্রগ্রামবাসী দ্রুত নিজস্ব সচেতনতা বাড়ান,করোনা ভাইরাস এর মহামারীর এই সময়ে আপনার সচেতনতাই করোনা ভাইরাস থেকে নিজেকে ও চট্রগ্রামবাসীকে নিরাপদ রাখতে পারে।চটগ্রামবাসী নিয়মিত মাক্স ব্যাবহার করুন ও প্রযোজ্য স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলুন।

চট্রগ্রামে করোনা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে নিজেরা সচেতন হোন। নিজেকে ও অন্যদের ভাইরাস আক্রান্ত হওয়া থেকে নিরাপদ রাখুন।


আরো দেখুন

সাম্প্রতিক ভিডিওগুলি