পানশিরে তুমুল লড়াই, কিছু অঞ্চল দখলের দাবি তালেবানের

পানশির প্রদেশের বাজারাকে নিজের সমর্থকদের উদ্দেশ্যে বক্তৃতা দিচ্ছেন প্রতিরোধ বাহিনী ন্যাশনাল রেজিট্যান্স ফ্রন্ট অব আফগানিস্তানের (এনআরএফএ) নেতা আহমাদ মাসুদ। ছবি: রয়টার্স
সর্বমোট পঠিত : 56 বার
জুম ইন জুম আউট পরে পড়ুন প্রিন্ট

আফগানিস্তানের পানশির উপত্যকায় তালেবানের সঙ্গে বিরোধী প্রতিরোধ যোদ্ধাদের তুমুল লড়াই চলছে। প্রদেশটির কিছু অঞ্চল দখলে নেওয়ার দাবি করেছে তালেবান।

সেইসঙ্গে পানশিরের তালেবানবিরোধী ন্যাশনাল রেজিস্ট্যান্স ফ্রন্টের (এনআরএফ) অনেক সদস্য হতাহত হয়েছে বলেও দাবি করেছে তারা।

তবে তালেবানের এ দাবি উড়িয়ে দিয়ে এনআরএফ বলেছে, পানশিরের প্রতিটি প্রবেশপথের নিয়ন্ত্রণই তাদের হাতে রয়েছে। উল্টো তালেবানের কয়েকশ' যোদ্ধাকে হত্যার দাবি করেছে এনআরএফ।

গত বুধবারই পানশির ঘিরে ফেলে শান্তিপূর্ণভাবে আলোচনার মাধ্যমে সমস্যা সমাধানের জন্য তালেবান-বিরোধী বাহিনীকে আহ্বান জানিয়েছিলেন তালেবান নেতারা। এরপর থেকেই সেখানে সংঘাত চলছে। উভয়পক্ষই একে অপরের বহু যোদ্ধাকে হতাহত করার দাবিও করছে।

রয়টার্স বার্তা সংস্থার খবরে বলা হয়েছে, তালেবানের মুখপাত্র জাবিউল্লাহ মুজাহিদ বলেছেন, আলোচনা ভেস্তে যাওয়ার পর তালেবান যোদ্ধারা পানশির উপত্যকায় ঢুকেছে।


তালেবান ও এনআরএফ- এর নিজ নিজ পক্ষে খুবই ভিন্ন অবস্থানের কারণে আলোচনা ব্যর্থ হয় বলে বিবিসি পারসিয়ানকে জানিয়েছেন এনআরএফ এর মুখপাত্র ফাহিম দাশতি।

তিনি জানান, দুটি ফ্রন্টে এনআরএফ তালেবানের সঙ্গে লড়াই করছে। এতে তালেবানের ৩৫০ সদস্য নিহত হয়েছে এবং আরও বহু সংখ্যক তালেবান আটক হয়েছে। তবে দাশতির এই দাবি নিরপেক্ষসূত্রে যাচাই করতে পারেনি বিবিসি।

আফগানিস্তানের রাজধানী কাবুলের উত্তরে হিন্দুকুশ পর্বতমালায় পানশির প্রদেশের অবস্থান। গত ১৫ অগাস্ট তালেবান কাবুল দখল করলেও এখনও নিয়ন্ত্রণে নিতে পারেনি পানশির উপত্যকাকে।

কাবুল তালেবানের নিয়ন্ত্রণে চলে যাওয়ার পর আফগান সেনাবাহিনীর অবশিষ্টাংশ, স্পেশাল ফোর্সেসের বিভন্ন ইউনিট পানশিরে গিয়ে স্থানীয় মিলিশিয়া বাহিনীর কয়েক হাজার যোদ্ধার সঙ্গে যোগ দিয়েছে।

সেখানে তারা সাবেক মুজাহিদ কমান্ডারের ছেলে আহমাদ মাসুদের নেতৃত্বে প্রতিরোধ গড়ে তোলে। খাড়া এই উপত্যকায় বাইরে থেকে আক্রমণ চালানো বেশ কঠিন।

মন্তব্য

আরও দেখুন

জামালপুর লাইভ টিভি