জামালপুরে বন্যার পানি বিপদসীমার ৬৩সেন্টিমিটার উপরে

সর্বমোট পঠিত : 306 বার
জুম ইন জুম আউট পরে পড়ুন প্রিন্ট

জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরে অতিরিক্ত উপ-পরিচালক মো. সাখাওয়াৎ ইকরাম জানিয়েছেন, বন্যার পানিতে জেলার ৩৬’শ ২৩ হেক্টর জমির ফসল তলিয়ে গেছে। এর মধ্যে রোপা আমন ধান ৩৫শ ৩০ হেক্টর,রোপা আমন বীজতলা ৪৫ হেক্টর এবং শাক সবজি ৪৮ হেক্টর।

উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ী ঢলে জামালপুরে যমুনা ও ব্রহ্মপুত্র নদ-নদীর পানি বৃদ্ধি অব্যাহত রয়েছে। শুক্রবার দুপুরে যমুনা নদীর পানি দেওয়ানগঞ্জের বাহাদুরাবাদ ঘাট পয়েন্টে বিপদসীমার ৬৩সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হয়েছে।

জামালপুর জেলার ইসলামপুর, দেওয়ানগঞ্জ, মাদারগঞ্জ, মেলান্দহ, সরিষাবাড়ি ও বকশীগঞ্জে সহ ৭টি উপজেলার ৩৫টি ইউনিয়ন বন্যা কবলিত হয়ে পড়েছে। ফলে জেলার বন্যা কবলিত লক্ষাধিক মানুষ বন্যা আক্রান্ত হয়ে চরম দূভোর্গে পড়েছে।



পানি বৃদ্ধির সাথে সাথে ৬৫টি পরিবার নদী ভাঙনের শিকার হয়েছেন। তলিয়ে গেছে রোপা-আপন ফসল ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও নিম্নঞ্চলের বিস্তীর্ণ জনপদ। বন্যা কবলিত এলাকায় প্রশাসনের ত্রাণ তৎপরতা না থাকায় খাদ্য সংকটে রয়েছে ভানভাসী এলাকার মানুষ।

জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরে অতিরিক্ত উপ-পরিচালক মো. সাখাওয়াৎ ইকরাম জানিয়েছেন, বন্যার পানিতে জেলার ৩৬’শ ২৩ হেক্টর জমির ফসল তলিয়ে গেছে। এর মধ্যে রোপা আমন ধান ৩৫শ ৩০ হেক্টর,রোপা আমন বীজতলা ৪৫ হেক্টর এবং শাক সবজি ৪৮ হেক্টর।



জেলা ত্রাণ ও পূর্নবাসন কর্মকর্তা নায়েব আলী জানিয়েছেন, বন্যা দুর্গত এলাকার জন্য নগদ সহায়তা ও ত্রাণসামগ্রী বিতরণ সহ সব ধরনের প্রস্তুতি প্রশাসনের পক্ষ থেকে নেওয়া হয়েছে। দুর্যোগ মোকাবিলা ১৫৫টি আশ্রয় কেন্দ্র ও ৮০টি মেডিকেল টিম প্রস্তুত রাখা হয়েছে।

এস আর /জামালপুর লাইভ

মন্তব্য

আরও দেখুন

জামালপুর লাইভ টিভি